Views: 175

সই
-“বলো না দিদাভাই?”
-“কি বলবো রে দিদিভাই?”
-“সেই যে গো তোমার গ্রামের বাড়ির গল্প! তারপরে সেই যে তোমাদের গ্রামে একটা জমিদার বাড়ি ছিল তার গল্প, তারপর তোমার কত বন্ধু ছিল, তাদের সাথে তুমি কি কি খেলতে, এইসব গল্পগুলো বলবে না নাকি বলো না দিদাভাই সেই গল্পগুলো।”
রিনি এইবার শিখা দেবীর গলা জড়িয়ে ধরে খুব আবদার করে। শিখা দেবী রিনির দিদা। রিনির  ক্লাস ওয়ান এর ফাইনাল পরীক্ষা হয়ে গেছে তাই সে দিদার কাছে বেড়াতে এসেছে।
-“রিনি দিদাভাইকে এখন বিরক্ত করো না। দেখছো না দিদাভাই এখন বই পড়ছে।”,মৈত্রেয়ী বললো।
মৈত্রেয়ী হলো রিনির মা এবং শিখা দেবীর মেয়ে। সেও এসেছে তার মায়ের কাছে।

-“বারে আমি কোথায় দিদাভাই কে বিরক্ত করলাম দিদাভাই যে বলেছিলো আমার পরীক্ষা হয়ে গেলে দিদাভাইয়ের ছোটবেলার গল্প শোনাবে।  তাই তো আমি দিদাভাইকে গল্প শোনাতে বলছি। “
 -” হ্যাঁ দিদিভাই গল্প শোনাবো তো!কিন্তু তার আগে এই ফলগুলো খেয়ে নাও তো।”
 এরপর শিখা দেবী গল্প শোনাতে শুরু করেন রিনিকে গল্প শুনতে শুনতে কিছুক্ষন পর পরই রিনি বলে,
 -“তারপর কি হলো দিদাভাই তোমার সই এর?! “
রিনির এই জিজ্ঞাসা ভীষণ ভালো লাগে শিখা দেবীর।

 -“তারপর!!…..” হটাৎ গল্প বলতে বলতে বাধা পরে  কারণ শিখা দেবীর ফোনটা বেজে ওঠে। ফোনের ওপার থেকে উত্তর এলো,
 -“শিখা দেবী বলছেন?”
 -“হ্যাঁ বলছি। আপনি কে বলেছেন “
-“আমি প্রান্তিক গ্রাম থেকে সায়ন্তী বলছি।”
 -“সায়ন্তী!! কিছু মনে করবেন না আমি ঠিক চিনতে পারছি না আপনাকে।”
-“শিখা মাসি আমি তোমার ছেলেবেলার সই শুভ্রার মেয়ে। “
 -“কি আশ্চর্য এই এক্ষুনিই তোর মায়ের কথা আমি আমার নাতনিকে শোনাচ্ছিলাম কতদিন পর আবার যোগাযোগ হলো।”
-“হ্যাঁ মাসি তোমার ফোন নম্বরটা মায়ের থেকে আমি পেয়েছি, তাই আমি তোমাকে ফোন করছি।”
-“কেমন আছে শুভ্রা?”
-“তুমি একবার আসবে আমাদের এখানে?”
-“কেন রে তোরা সবাই ঠিক আছিস তো “
-“না মাসি মানে তুমি প্লিজ এস যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মা আমাকে ফোন করে তোমাকে ডাকতে বলেছে আর আমাকেও ডেকে পাঠিয়েছে।”

 এই কথাটা বলে সায়ন্তী ফোনটা কেটে দিলো। শিখা দেবী কি আর করেন মৈত্রেয়ীর সঙ্গে কথা বলে ঠিক করলেন যে শুভ্রার সাথে দেখা করতে যাবেন এবং তিনি একা নয় সাথে রিনি আর মৈত্রেয়ীও যাবে।  যথাযথ দিনে শিখা দেবী  রিনি আর মৈত্রেয়ী রওনা হলেন। রিনির তো ভীষণ মজা হচ্ছে কারণ রিনি কোনোদিনও গ্রাম দেখেনি আর তাছাড়া রিনি বিশ্বাস করতে পারছেনা যে তার দিদার কাছে এতদিন যাদের গল্প গুলো শুনেছে তাদের সাথে দেখা হবে;এটা ভেবেই খুব আনন্দ হচ্ছে তার। ঠিক সময় মতো প্রান্তিক গ্রামে শিখা দেবীরা পৌঁছে গেলেন। শুভ্রা দেবীর বাড়ি খুঁজে পেতেও বেশি সময় লাগলো না কারণ শুভ্রা দেবীর মেয়ে সায়ন্তী ঠিকানা পাঠিয়ে দিয়েছিলো মৈত্রেয়ীকে।  

এতদিন পর আবার নিজের গ্রামে ফিরে পুরোনো দিনের অনেক কথা মনে পরে যাচ্ছে শিখা দেবীর। গ্রামটা এখন কিছুটা বদলে গেছে কিন্তু মানুষগুলো আজও একই রয়ে গেছে।  কত পুরোনো বাড়ি,পুরোনো রাস্তা, কত গাছ জীর্ণ থেকে জীর্ণতর হয়ে  কত যুগের,কত ঘটনার সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে আজও। এইসব ভাবতে ভাবতে কখন যে পৌঁছে গেছেন শিখা দেবী তার সইয়ের বাড়ি খেয়ালই করেননি।

শুভ্রা দেবীর মেয়ে তাদের ঘরে নিয়ে গেলো। বাড়ির ভিতরে গিয়ে নির্দিষ্ট ঘরে গিয়ে শিখাদেবীরা সবাই কিছুক্ষন  বিশ্রাম করলেন। সায়ন্তী এসে তাদের ডেকে নিয়ে গেলো শুভ্রা দেবীর ঘরে। ঘরে গিয়ে খুব অবাক হয়ে গেলেন শিখা দেবী দেখলেন শুভ্রা দেবী দিব্যি বসে আছেন নিজের খাটে এবং শিখা দেবীকে দেখে মুচকি মুচকি হাসছে আর বলছে,
-” আর কিছুই নয় রে সই,যা শরীরের অবস্থা কবে আছি না আছি তার তো ঠিক নেই  আর তাছাড়া এরপর সবার সাথে কবে আবার দেখা হবে তাই তোদের সবাইকে ডাকলাম। তোর আর আমার মেয়েদুটোকেও দলে টেনেছি।” এই কথাটা বলার পর শিখা দেবীর মেয়ে বললো,
-” সরি মা শুভ্রা মাসি আর সায়ন্তী আমার সাথে রিনির পরীক্ষার আগেই যোগাযোগ করেছিল, তাই ভাবলাম রিনির পরীক্ষা শেষ হয়ে গেলে সবাই মিলে তোমার পুরোনো সইয়ের কাছে গেলে তোমার ভালোই লাগবে;তোমাকে সারপ্রাইজ দেব বলে কিছু বলিনি,তুমি খুশি হয়েছো তো মা?”  
শিখা দেবী বললেন,
-“খুশি হয়েছি মানে খুব খুব খুশি হয়েছি আমি।”
-“এমনিতেতো তোরা আসবি না তাই আমার জন্মদিনেই না হয় এলি  আমাদের সেই ছেলেবেলার খেলার সাথীরাও এসে পড়ল বলে।” শুভ্র দেবী বললেন।
 -“ঠিক বলেছিস সই আমারই দোষ যে তোর সাথে আমি যোগাযোগ রাখতে পারিনি  ভাগ্যিস সায়ন্তী ফোন করে ডাকলো নইলে তোর সাথে দেখাও হতো না আর উপরি পাওনা তোর জন্মদিনেও তোকে শুভেচ্ছা জানানো হতো না। ”  
এই কথাটা বলেই শিখা দেবী  শুভ্রা দেবীকে গলা জড়িয়ে ধরে বললেন,
-” শুভ জন্মদিন সই।”
 আর সঙ্গে সঙ্গে রিনি বলে উঠলো,
 -“happy birthday সই দিদা।”

Audio Story Starts From Here:

Story InfoName
WriterOlivia Das
NarratorOlivia Das
IntroductionPriyanka Dutta
CharactersName
Sikha debi & Subhra debiKaberi Ghosh
Rini & MoitreyiPriyanka Dutta
SayantiOlivia Das

আরো পড়ুন

https://www.facebook.com/srijoni

What’s your Reaction?
+1
0
+1
2
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

About Post Author

3 thoughts on “সই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *