স্টক ইমেজ কি?

স্টক ইমেজ হলো ক্যামেরায় তোলা কোন ছবি বা কোন আঁকা ছবি বা কোন ডিজাইন যেগুলি কোন নির্দিষ্ট বিষয়বস্তুকে মাথায় রেখে তৈরি করা হয় না সাধারণত লাইসেন্স প্রাপ্ত হয়, এবং বিনামূল্যে বা নির্দিষ্ট মূল্যের বিনিময়ে ছবিটি ব্যবহারের আইনি অধিকার পাওয়া যায়।

স্টক ইমেজ কি বিনামূল্যে ব্যবহার করা যায়?

কিছু কিছু এই ইমেজ কপিরাইট রেস্ট্রিকশন মুক্ত হয় অথবা ক্রিয়েটিভ কমন পাবলিক ডোমেইন ডেডিভশনের  অধীনস্থ হয়, এগুলি বিনামূল্যে ব্যবহার করা যায়। কিন্তু যে সমস্ত স্টক ইমেজ কপিরাইট রেস্ট্রিকশন যুক্ত হয় সেগুলি না কিনে বিনামূল্যে ব্যবহার না করাই ভালো। নতুবা ভবিষ্যতে সমস্যায় জড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা থাকে।

কপিরাইট রেস্ট্রিকশন যুক্ত স্টক ইমেজ না কিনে বিনামূল্যে ব্যবহার করলে কি হয়?

এই ধরনের এই ইমেজ না কিনে ব্যবহার করলে সেই মুহূর্তে কোন সমস্যা না হলেও এটা ভেবে নেওয়া ভুল যে এই নিয়ে ভবিষ্যতেও কোনো সমস্যা হবে না। কারণ যদি কোনদিন ওই ছবিটির আসল সৃষ্টিকর্তা জানতে পারেন যে আপনি তার বিনা অনুমতিতে তার ছবিটি ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে ব্যবহার করছেন তাহলে তিনি আদালতে আপনার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতেই পারেন এবং আপনার কাছ থেকে বিশাল মূল্যের ক্ষতিপূরণ দাবি করতেই পারেন যা প্রথম থেকেই ইমেজ গুলো কিনতে হলে যা সামান্য মূল্য দিতে হয় তার থেকে অনেক বেশি হয়। সেই জন্য কপিরাইট রেস্ট্রিকশন যুক্ত স্টক ইমেজ সর্বদা কেনার পরেই ব্যবহার করা উচিত।

স্টক ইমেজ কিনে নেওয়ার পর আমরা কি সেটিকে এডিট করে ব্যবহার করতে পারি?

সাধারণত স্টক ইমেজ কিনে নেওয়ার পর যেহেতু আপনি সেগুলি ব্যবহারের কপিরাইট অধিকার পেয়ে যাচ্ছেন তাই সেগুলির পেশাদার ফটো রিটাচিং বা সেগুলির সামান্য  এডিটিং কোন আইন বিরুদ্ধ কাজ নয় কিন্তু এরো একটি সীমাবদ্ধতা আছে। স্টক ইমেজটি আপনার কেনা হলেও আপনি কখনোই সেটিকে অশ্লীল, মানহানিকর, অনৈতিক কাজ প্রভৃতি কাজের ব্যবহারের উপযোগী করে তোলার জন্য এডিট করতে পারেন না এটি সম্পুর্ন আইনবিরুদ্ধ এবং শাস্তিযোগ্য একটি কাজ।

স্টক ইমেজ  ব্যবহারের  সুবিধা –

স্টক ইমেজ ব্যবহারের দ্বারা ক্রেতা এবং বিক্রেতা উভয়েই  লাভবান হন। একদিকে ক্রেতা সামান্য মূল্যের বিনিময়ে স্টক ইমেজগুলি অর্জন করার পর নিজের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজে সেগুলি ব্যবহার করতে পারেন। ফলস্বরূপ নিজে ছবি তৈরি করার পরিশ্রম এবং সময় নষ্টের হাত থেকে বেঁচে যান যে সময়টি তিনি অন্য কোন গুরুত্বপূর্ণ কাজে ব্যবহার করতে পারেন। তেমনি বিক্রেতার দ্বারা সৃষ্ট ছবিগুলি থেকে থেকে নষ্ট হয়ে যাওয়া বা সোশ্যাল মিডিয়ায় কিছু সময়ের জন্য জনগণকে আকৃষ্ট করার পর ধীরে ধীরে হারিয়ে যাওয়ার পরিবর্তে কোন স্টক ইমেজের সাইটে আপলোড হয়ে যাওয়ার ফলে বছরের পর বছর তার অস্তিত্ব থেকে যায় এবং পরবর্তীকালে কোন ক্রেতা যদি ওই ছবিটিকে ক্রয় করেন তাহলে তার পরিবর্তে বিক্রেতা ছবিটির জন্য লভ্যাংশ লাভ করে থাকেন।

স্টক ইমেজের ব্যবহার –

স্টক ইমেজ ওয়েবসাইট তৈরির কাজে, ব্লগের বিষয়বস্তুর ছবি হিসেবে, পোস্টার তৈরি, ফ্লায়ার তৈরি, বইয়ের কভার তৈরি, নিউজলেটার এবং অন্যান্য আরো অনেক কাজে ব্যবহার করা যায়।

কিভাবে স্টক ইমেজ বিক্রি করা যায়?

এক্ষেত্রে সবথেকে সহজ পদ্ধতি হলো কোন থার্ড-পার্টি মাইক্রোস্টক ওয়েবসাইটে ছবিগুলি আপলোড করে দেওয়া এবং তাদের সাহায্যে ছবিগুলি বিক্রি করা। এক্ষেত্রে ছবি বিক্রির পুরো টাকাটি আপনি পাবেন না ঠিকই তবুও এটি এই ধরনের ব্যবসায় তাড়াতাড়ি লাভবান হওয়ার শ্রেষ্ঠ উপায়। যা আপনাকে আপনার মূল কর্মক্ষেত্রের বাইরেও অন্য দিক থেকে কিছু অতিরিক্ত অর্থ উপার্জনের রাস্তা তৈরি করে দেয়। যদি আপনার নিজস্ব ছবির সংগ্রহ বিশাল হয়  সেক্ষেত্রে আপনি ওয়েবসাইট খুলে তার সাহায্যে ছবি বিক্রি করতে পারেন এবং বিক্রি হওয়া ছবির পুরো অর্থ-তাই আপনি পেতে পারেন কিন্তু তার জন্য আপনাকে প্রথমে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া বা অন্য কোনভাবে নিজের ছবি এবং ওয়েবসাইটের প্রচার করে জনগণকে তার প্রতি আকৃষ্ট করতে হবে এবং সেক্ষেত্রে এই ব্যবসাটি দাঁড় করানোর জন্য ধৈর্য ধরে একটু বেশি সময় অপেক্ষা করতে হবে।

Softweb Development Technologies এর একটি সিস্টার কোম্পানি হল Photoskart যেখানে বিভিন্ন ধরনের এবং বিভিন্ন বৈচিত্রের স্টক ইমেজ পাওয়া যায় যা আপনারা  বিনামূল্যে বা একটি নির্দিষ্ট খুব সামান্য মূল্যের বিনিময়ে ক্রয় করে ব্যবহার করতে পারেন।এই ওয়েবসাইটে নিজস্ব ছবি আপলোডের জন্য কোন মূল্য দিতে হয়না উপরন্তু আপনার ছবিটি বিক্রি হলে বিক্রির দামের ৮০% মূল্য আপনাকে দেওয়া হয়।


সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের সুবিধা এবং অসুবিধা

https://www.facebook.com/srijoni

আরো পড়ুন

স্টক ইমেজ
What’s your Reaction?
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

About Post Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *